[বাংলা সাহিত্য জীবনী] ১৮ শতকের অন্যতম কিছু কবিদের নিয়ে - পর্ব ১

আপনার জ্ঞানপিপাসু বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে এই সম্পর্কে জানান

আপনার জন্য আরো লেখা



 রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (৭ মে , ১৮৬১ — ৭ আগস্ট, ১৯৪১)

  • ১৯০১ সালে বোলপুরের শান্তি নিকেতন ‘ব্রহ্মচর্যাশ্রম’ নামক বিদ্যাপীঠ প্রতিষ্ঠা করেন যা ১৯২১ সালে ‘বিশ্বভারতী’ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়।
  • ১৯১৩ সালের নবেম্বর মাসে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। একই বছর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় তাকে ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান করে।
  • ১৯১৫ সালে তদানীন্ত ভারত সরকার তাকে ‘স্যার বা নাইট’ উপাধি প্রদান করে। ১৯১৯ সালে তিনি নাইট উপাধি ত্যাগ করেন।
  • ১৯৩৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১৯৪০ সালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় তাকে ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান করে।
  • রবীন্দ্রনাথ মোট (১২ + ১ টি অসমাপ্ত) টি উপন্যাস রচনা করেন উপন্যাস গুলো হলো- করুণা (অসমাপ্ত), বেৌ ঠাকুরাণীর হাট (প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস), রাজর্ষি, শেষের কবিতা, ঘরে বাইরে, চার অধ্যায়, গোরা, চোখের বালি (বাংলা সাহিত্যে প্রথম মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস), নেৌকাডুবি, যোগাযোগ, মালঞ্চ, দুইবোন, চতুরঙ্গ।
  • তার উল্লেখযোগ্য নাটক রুদ্রচন্ড, বাল্মীকি প্রতিভা (প্রথম প্রকাশিত নাটক), বসন্ত (নাটকটি তিনি নজরুলকে উৎসর্গ করেন), কালের যাত্রা, তাসের দেশ, শ্যামা, ডাকঘর, বিসর্জন, রাজ এবং রানী, রাজা, চিত্রাঙ্গদা, অচলায়তন, তাপসী, মুক্ত ধারা, অরুপরতন, নটির পূজা, রক্তকরবী, মালিনী।
  • তার উল্লেখযোগ্য ছোট গল্প হচ্ছে ভিখারিণী (প্রথম প্রকাশিত ছোটগল্প), সমাপ্তি, ক্ষুদিত পাষাণ, মনিহার, অতিথি।
  • রবীন্দ্রনাথের মোট কাব্যগ্রন্থ ৫৬ টি। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে কবি-কাহিনী (প্রথম কাব্যগ্রন্থ), বনফুল, বলাকা, নবজাতক, শেষলেখা।
  • হিন্দু মেলার উপহার রবীন্দ্রনাথের প্রথম কবিতা।
  • রবীন্দ্রনাথের উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধ হচেছ ভ্রমণকাহিনী, য়ুরোপ প্রবাসীর পত্র, জাভা যাত্রীর পত্র, জাপান যাত্রী, রাশিয়ার চিঠি, বাংলা ভাষার পরিচয়, শব্দতত্ত্ব, সভ্যতার সংকট, কালান্তর, স্বদেশ।
  • রবীন্দ্রনাথের আত্নজীবনী হলো আমার ছেলে বেলা, জীবনস্মৃতি।
প্রমথ চৌধুরী (১৮৬৮-১৯৪৬) 
  • ১৮৬৮ খ্রিস্টাব্দের ৭আগস্ট যশোরে জন্মগ্রহণ করেন।
  • ছদ্মনাম – বীরবল।
  • বাংলা গদ্যে চলিত রীতির প্রবর্তক। চার ইয়ারী কথা-বাংলা সাহিত্যে চলিত রীতিতে লেখা প্রথম গ্রন্থ)। এটি সবুজপত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
  • ’সবুজপত্র’ (১৯১৪)পত্রিকার সম্পাদক।তিনি ‘বিশ্বভারতী’ পত্রিকারও সম্পাদনা করেন।
  • প্রমথ চৌধুরী রবীন্দ্রনাথের অগ্রজ বাংলার প্রথম সিভিলিয়ান সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুরের কন্যা ইন্দিরা দেবীকে বিয়ে করেন। এই ইন্দিরা দেবীকে উদ্দেশ্য করেই তিনি ‘ছিন্নপত্রে’র পত্রগুলো লিখেছিলেন।
  • প্রমথ চৌধুরী পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার শান্তিপুর ও কৃষ্ণনগর অঞ্চলের শিক্ষিত শিষ্টজনের মুখের ভাষাকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সহযোগিতায় ‘সবুজপত্র’ পত্রিকার মাধ্যমে চলিত রীতিতে রূপ দেন।
  • চলিত রীতিতে লেখা তাঁর প্রথম রচনা – ‘বীরবলের হালখাতা’ (১৯১৬)।এটি চলিত রীতিতে প্রকাশিত বাংলা সাহিত্যেরও প্রথম গ্রন্থ।
  • তিনি বাংলা সাহিত্যে চলিত ভাষার প্রবর্তক ও বিদ্রূপাত্মক প্রাবন্ধিক হিসেবে পরিচিত।
প্রমথ চৌধুরীর প্রবন্ধগ্রন্থগুলো মনে রাখুন:
প্রবন্ধ সংগ্রহের লেখক প্রমথ চৌধুরী আমাদের শিক্ষা দেয়ার জন্য নানাজনের নানাকথার পরেও নানাচর্চায় বীরবলের হালখাতায় তেল-নুন-লকড়ি দিয়ে রায়তের কথা লিখলেন।
(ক) প্রবন্ধ সংগ্রহ (প্রথম খণ্ড- ১৯৫২,দ্বিতীয় খণ্ড-১৯৫৩)
(খ) আমাদের শিক্ষা(১৯২০)
(গ) নানাকথা (১৯১৯)
(ঘ) নানাচর্চা (১৯৩২)
(ঙ) বীরবলের হালখাতা (১৯১৬)
(চ) তেল-নুন-লকড়ি (১৯০৬)
(ছ) রায়তের কথা (১৯২৬)

তিনি বাংলা কাব্যসাহিত্যে ইটালীয় সনেটের প্রবর্তক হিসেবে বিশেষ স্থান লাভ করেন।তাঁর রচিত কাব্যগ্রন্থগুলো হল –
(ক) সনেট পঞ্চাশৎ(১৯১৩)
(খ) পদচারণ (১৯১৯)

প্রমথ চৌধুরীর গল্পগ্রন্থ -
আহুতি নীললোহিতকে চার(ইয়ারী) কথা বললেন।
(ক) চার ইয়ারী কথা (১৯১৬)
(খ) আহুতি(১৯১৯)
(গ) নীললোহিত (১৯৪১)
  •  "সুশিক্ষিত মানুষ মাত্রি স্বশিক্ষিত"- উক্তিটি প্রমথ চৌধুরীর।
  • তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘জগত্তারিণী স্বর্ণপদক’ লাভ করেন।
শরত্চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় (১৮৭৬-১৯৩৮)

তিনি বাংলা সাহিত্যে ‘অপরাজেয় কথাশিল্পী নামে পরিচিত। তিনি ১৯২৩ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় হতে ‘জগত্তারিণী’ পদক এবং ১৯৩৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে ডি.লিট উপাধি লাভ করেন।

  • তিনি বাংলা সাহিত্যে উপন্যাস রচনার জন্য বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন। তার উল্লেখযোগ্য উপন্যাস হচ্ছে বড়দিদি (এটি তার প্রথম উপন্যাস), শ্রীকান্ত (৪ খন্ডে রচিত এটি তার শ্রেষ্ঠ রচনা), পথের দাবী, গৃহদাহ, দেবদাস, শুভদা, চরিত্রহীন, দত্তা।
  • তার রচিত নাটক হচ্ছে ষোড়শী, বিজয়া, রমা।
  • তিনি ‘নারীর মূল্য’ নামে একটি প্রবন্ধ রচনা করেন।
  • কুন্তলীন পুরস্কার প্রাপ্ত ছোট গল্প ‘মন্দির’ তার প্রথম রচনা।

শরত্চন্দ্রের গল্পসমূহ -

বিলাসীর মেজদিদি বিন্দুর দুই ছেলে মহেশ ও পরেশ আর এক মেয়ে সতী মন্দিরের জমি নিয়ে মামলার ফলে তারা আজ কপর্দকশুন্য।

শরত্চন্দ্রের উপন্যাস মনে রাখার কৌশল-

অরক্ষণীয় গৃহের ছবি দেখে কাশীনাথ শ্রীকান্তকে বললেন, "চরিত্রহীন দেবদাস পশুর সমান
চ- চরিত্রহীন, দেব- দেবদাস, দেনা পাওনা, দাস- বিপ্রদাশ, প-পরিণীতা, শু-পণ্ডিতমশাই, র-পথের দাবি, স-পল্লী সমাজ, মা-রামের সুমতি, ন-চন্দ্রনাথ ।

সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী (১৮৮০-১৯৩১)
  • রায়নন্দিনী, তারাবাঈ তার উল্লেখযোগ্য উপন্যাস।
  • তিনি অনল প্রবাহ নামক একটি কাব্যগ্রন্থ রচনা করেন যা ইংরেজ সরকার বাজেয়াপ্ত করে।
  • তার রচিত মহাকাব্য হচ্ছে স্পেন বিজয়কাব্য।
  • তুরস্ক ভ্রমণ তার রচিত প্রবন্ধ।
বেগম রোকেয়া (১৮৮০-১৯৩২)
  • তিনি ছিলেন মুসলিম নারী জাগরণের অগ্রদূত। নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি প্রতিষ্ঠা করেন মুসলিম মহিলা সমিতি।
  • তার রচিত উপন্যাস হচ্ছে অবরোধবাসিনী (লেখিকার শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ ; ১৯২৮), পদ্মরাগ, সুলতানার স্বপ্ন, ডিলিসিয়া হত্যা।
  • তার রচিত প্রবন্ধ হচ্ছে মতিচুর (লেখিকার প্রথম গ্রন্থ)।
  • বেগম রোকেয়ার স্বামীর নাম = সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন।
  • বেগম রোকেয়ার লেখা প্রকাশিত হতো = মিসেস আর.এস.হোসেন নামে।
  • তাঁর অসাধারণ কীর্তি = মুসলমান মেয়েদের জন্য “”সাখাওয়াত মেমোরিয়াল হাই স্কুল”” প্রতিষ্ঠা।
  • তাঁর রচিত ইংরেজি গ্রন্থের নাম = Sultanas Dream
  • বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের প্রথম গ্রন্থের নাম = মতিচুর (১ম খণ্ড ১৯০৪ সালে এবং ২য় খণ্ড ১৯২২ সালে প্রকাশিত)।
  • বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের জন্ম = ১৮৮০ সালের ৯ই ডিসেম্বর রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানার পায়রাবন্দ গ্রামে।
ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ (১৮৮৫-১৯৬৯)
  • তিনি ১৯৬০ সালে বাংলা একাডেমিতে যোগদান করেন। ১৯৬৬ সালে তিনি বাংলা পন্জিকা সংস্কার করেন।
  • তার গবেষণামূলক গ্রন্থ হচ্ছে বাংলা ভাষার ইতিবৃত্ত, বাংলা সাহিত্যের কথা, ভাষা 3 সাহিত্য, বাংলাদেশের আঞ্চলিক ভাষার অভিধান।
  • লেখকের অনুবাদগ্রন্থ হচ্ছে রুবাইয়াত ই 3মর খ্যায়াম।
  • এস 3য়াজেদ আলী (১৮৯০-১৯৫১)
  • ঐতিহাসিক উপন্যাস ‘গ্রানাডার শেষ বীর’ তার শ্রেষ্ঠ উপন্যাস।
  • তার রচিত প্রবন্ধ হচ্ছে ভবিষ্যতের বাঙালী, জীবনের শিল্প।
প্রিন্সিপাল ইব্রাহীম খা (১৮৯৪-১৯৭৮)
  • আনোয়ার পাশা, কামাল পাশা, কাফেলা তার রচিত নাটক।
  • "ইস্তাম্বুলের যাত্রীর পত্র" তার ভ্রমণকাহিনী।
  • তার গল্পগ্রন্থ হচ্ছে সোনার শিকল।
বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় (১৮৯৪-১৯৫০)
  • উপন্যাসিক হিসেবেই তিনি সর্বাধিক খ্যাতি অর্জন করেছেন। তার রচিত উপন্যাসগুলো হচ্ছে পথের পাচালী, আরণ্যক, অপরাজিত, অশনি সংকেত, অভিযাত্রিক।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কবে, কোথায় জন্মগ্রহণ করেনত ১২ সেপ্টেম্বর, ১৮৯৪ সালে, মাতুলালয়, মুরারিপুর গ্রাম, চবিবশ পরগনা।
  • তিনি মূলত ছিলেনত ঔপন্যাসিক।
  • শরৎচন্দ্র পরবর্তী বাংলা ঔপন্যাসিকদের মধ্যে জনপ্রিয় কে ছিলেনত বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত প্রথম উপন্যাস হচ্ছেতপথের পাঁচালী (১৯২৯)।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত উপন্যাসগুলোর নামত পথের পাঁচালী (১৯২৯), অপরাজিত (১৯৩১), দৃষ্টি প্রদীপ (১৯৩৫), আরণ্যক (১৯৩৮), আদর্শ হিন্দু হোটেল (১৯৪০), দেবযান (১৯৪৪), ইছামতী (১৯৪৯), অশনি সংকেত (১৯৫৯) ইত্যাদি।
  • পথের পাঁচালী উপন্যাস অবলম্বনে কে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেনতসত্যজিৎ রায়।
  • পথের পাঁচালীর দ্বিতীয় খন্ড বলা হয় কোন উপন্যাসকে?তঅপরাজিত (১৯৩১)।
  • এই উপন্যাসের প্রধান কয়েকটি চরিত্রের নাম লিখত অপু, দুর্গা, সর্বজয়া, হরিহর, অপর্ণা।
  • ঋত্বিক ঘটক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কোন উপন্যাস নিয়ে চলচ্চিত্র তৈরি করেনত অশনি সংকেত।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত ছোটগল্পগ্রন্থগুলোর নামত মেঘমল্লার (১৯৩১), মৌরীফুল (১৯৩২), যাত্রাবদল (১৯৩৪), কিন্নরদল (১৯৩৮)।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থের নামত তৃণাঙ্কুর (১৯৪৩)।
  • বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত পথের পাঁচালী উপন্যাসটি কোন কোন ভাষায় অনূদিত হয়েছেত ইংরেজি ও ফরাসি ভাষায়।
  • তিনি কোন উপন্যাসের জন্য রবীন্দ্র পুরস্কার লাভ করেনত ইছামতী (১৯৪৯)।
  • তাঁর কোন উপন্যাসে অরণ্যচারী মানুষের জীবন প্রাধান্য পেয়েছেত আরণ্যক (১৯৩৮)।
  • বিভূতিভূষনের উপন্যাসে কী গুরুত্বের সঙ্গে এসেছে?ত প্রকৃতি ও দরিদ্র মানুষের জীবন।
  • তিনি কত তারিখে মৃত্যুবরণ করেনত ১ সেপ্টেম্বর, ১৯৫০ সালে।
আবুল মনসুর আহমদ (১৮৯৮-১৯৭৯)
  • তার রচিত উপন্যাস হচ্ছে আবে হায়াত, জীবনক্ষুধা, সত্যমিথ্যা।
  • তার রচিত রম্যরচনা (গল্প) হচ্ছে আয়না, ফুড কনফারেন্স, আসমানী পর্দা, গ্যালিভারের সফরনামা।
  • তার রচিত প্রবন্ধ হচ্ছে আমার দেখা রাজনীতির পঞ্চাশ বছর (আত্নজীবনী), পাক বাংলার কালচার।
জীবনানন্দ দাশ (১৮৯৯-১৯৫৪)
  • রুপসী বাংলার কবি, নির্জনতার কবি, তিমির হননের কবি, ধূসরতার কবি এবং তিরিশের দশকের তথাকথিত জনবিচ্ছিন্ন কবি প্রভৃতি নামে তিনি পরিচিত।
  • তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ হচ্ছে ঝরা পালক (তার প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ), ধূসর পান্ডুলিপি, সাত তারার তিমির, বেলা অবেলা কালবেলা, বনলতা সেন, মহাপৃথিবী।
  • মাল্যবান, সতীর্থ তার রচিত উপন্যাস।
  • তার উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধ হচ্ছে কবিতার কথা, কেন লিখি।
কাজী নজরুল ইসলাম (১৮৯৯-১৯৭৬)
  • জন্ম: ২৫শে মে ১৮৯৯ ( ১১ ই জৈষ্ঠ ১৩০৬ বাংলা)
  • জন্মস্থানঃ পশ্চিম বাংলার আসানসোল মহকুমার চুরূলিয়া গ্রামে।
  • নজরুল বাংলা সাহিত্যে বিদ্রোহী কবি নামে পরিচিত
  • কাজী নজরুল বাংলাদেশের রণসঙ্গীতের রচয়িতা। রণসঙ্গীত হিসাবে মূল কবিতাটির ২১ চরণ গৃহীত।
  • ভারত থেকে স্থায়ীভাবে বাংলাদেশে আনা হয় ২৪শে মে ১৯৭২
  • বিদ্রোহী প্রকাশিত হয় ১৯২১ সালে বিজলী পত্রিকায়
  • অগ্নিবীনা প্রকাশিত হয় ১৯২২ সালে
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান ১৯৭৪
  • কাজী নজরুলের প্রথমঃ উপন্যাস- বাধন হারা, কবিতা- মুক্তি, কাব্য- অগ্নিবীণা, ছোট গল্প- হেনা, নাটক- ঝিলিমিলি, প্রবন্ধ গ্রন্থ- যুগবাণী(১৯২১), প্রবন্ধ- তুর্কি মহিলার ঘোমটা খোলা
  • প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থের নামঃ ব্যথার দান (প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৯২২)।
  • প্রথম প্রকাশিত রচনার নামঃ বাউন্ডেলের আত্মকাহিনী (প্রকাশঃ জ্যৈষ্ঠ ১৩২৬; সওগাত)।
  • প্রথম প্রকাশিত গল্পের নামঃ বাউন্ডেলের আত্মকাহিনী (প্রকাশঃ জ্যৈষ্ঠ ১৩২৬)।
  • প্রথম প্রকাশিত গল্পগ্রন্থের নামঃ ব্যথার দান (প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারি ১৯২২)।
  • প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নামঃ অগ্নি-বীণা (সেপ্টেম্বর, ১৯২২)।
  • প্রথম প্রকাশিত উপন্যাসের নামঃ বাঁধনহারা (১৯২৭)।
  • প্রথম বাজেয়াপ্ত গ্রন্থের নামঃ বিষের বাঁশী (প্রকাশ: আগষ্ট ১৯২৪/বাজেয়াপ্তঃ ২৪ অক্টোবর ১৯২৪)।
  • মোট ৫টি গ্রন্থ বাজেয়াপ্ত হয়ঃ বিশের বাঁশী, ভাঙার গান, প্রলয় শিখা, চন্দ্রবিন্দু, যুগবাণী।
  • নজরুল রচিত উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ হচ্ছে অগ্নি-বীণা(১৯২২)(কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থ), বিষের বাঁশি (১৯২৪), ভাঙার গান (১৯২৪), সাম্যবাদী (১৯২৫), সর্বহারা (১৯২৬), ফণি-মনসা (১৯২৭), জিঞ্জির (১৯২৮), সন্ধ্যা (১৯২৯), প্রলয় শিখা (১৯৩০), সঞ্চিতা, মরুভাস্কর, চিত্তনামা, ছায়ানট, দোলন চাপা, চক্রবাক, সিন্ধু হিন্দোল, ঝিঙে ফুল
  • উল্লেখযোগ্য গল্পগ্রন্থ হচ্ছে ব্যথার দান (প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থ), রিক্তের বেদন, শিউলিমালা।
  • তার রচিত উপন্যাস হচ্ছে বাধনহারা (প্রথম উপন্যাস), মৃত্যুক্ষুধা, কুহেলিকা।
  • তার রচিত নাট্যগ্রন্থ হচ্ছে ঝিলিমিলি (প্রথম নাট্যগ্রন্থ), পুতুলের বিয়ে, আলেয়া, মধুমালা।
  • লেখকের উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধগ্রন্থ হচ্ছে যুগবাণী (প্রথম প্রবন্ধগ্রন্থ), রাজবন্দীর জবানবন্দী, দুর্দিনের যাত্রী।
  • কাজী নজরুল ইসলাম সম্পাদিত পত্রিকাঃ লাঙ্গল, ধূমকেতু, নবযুগ।
  • নজরুলের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা: দশ বছর বয়সে গ্রামের মক্তব থেকে নিম্ন প্রাইমারী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ (১৯০৯) হন্ এরপর ১৯১৪ সালের ত্রিশালের দরিরামপুর স্কুলে, ১৯১৫ সালে পশ্চিমবঙ্গের রানীগঞ্জ শিয়ারশোল রাজস্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে ভর্তি হন। এই স্কুল থেকে ১৯১৭ সালে দশম শ্রেণী প্রি-টেস্ট পরীক্ষার সময় লেখাপড়া অসমাপ্ত রেখে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগ দেন।
  • বার বছর বয়সে তিনি লেটোর দলে যোগ দেন এবং ‘পালা গান’ রচনা করেন।
  • রবীন্দ্রনাথ তাঁর বসন্ত গীতিনাট্য নজরুলকে উৎসর্গ করেন।
  • রক্তাম্বরধারিনী মা কবিতা রচনার জন্য কাজী নজরুল ইসলামের ‘অগ্নিবীনা’ কাব্য নিষিদ্ধ হয়?
  • অগ্নি-বীণার প্রথম কবিতা প্রলয়োল্লাস।
  • জীবনভিত্তিক কাব্যগুলো হলোঃ ‘চিত্তনামা'(১৯২৫)[দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ] ও মরু-ভাস্কর (১৯৫০)[হযরত মুহাম্মদ (সঃ)]।
  • বিখ্যাত গল্পগ্রন্থগুলোর নামঃ ব্যথার দান (১৯২২), রিক্তের বেদন (১৯২৫), শিউলিমালা (১৯৩১)।
  • সংগীত বিষয়ক গ্রন্থাবলীর নামগুলি হলোঃ চোখের চাতক, নজরুল গীতিকা, সুর সাকী, বনগীতি প্রভৃতি।
  • তাঁকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ও ভারত সরকার কর্তৃক যথাক্রমে জগত্তারিণী স্বর্ণপদক (১৯৪৫) ও পদ্মভূষণ (১৯৬০) পদক দেয়া হয়।
  • বিবিসির বাংলা বিভাগ কর্তৃক জরিপকৃত (২০০৪) সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালির তালিকায় নজরুলের স্থানঃ তৃতীয়।
  • বাল্যকাল তিনি দুখু মিয়া নামে পরিচিত ছিলেন।
  • কাজী নজরুল ইসলামের লেখা নাটকগুলি হলঃ ঝিলমিলি, আলেয়া, পুতুলের বিয়ে
  • কাজী নজরুল ইসলামের অনুবাদ গ্রন্থের নামঃ রুবাইয়াৎ-ই-হাফিজ (১৯৩০) ও রুবাইয়াৎ-ই-ওমর খৈয়াম (১৯৬০)।
  • কাজী নজরুলের ‘সাম্যবাদী’ কবিতাটি প্রথম লাঙ্গল পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
  • নজরুল ইসলামের কবিতা সর্বপ্রথম বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য পত্রিকায় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
  • তিনি মৃত্যুবরণ করেনঃ ২৯ আগষ্ট, ১৯৭৬; ১২ ভাদ্র ১৩৮৩ বঙ্গাব্দ।


নাম

অর্থনীতির হিসাব-নিকাশ,3,আমাদের পরিবেশ,2,ইংরেজীকে সহজ করে ভাবুন,1,খাবার-পুষ্টি ও স্বাস্থ,2,গুগলের সাথে কিছুক্ষন,1,চলুন না ! ঐ দিকটায় একটু ডু মেরে আসি,1,প্রেজেন্টেশনের ময়না তদন্ত,3,বাংলা-বাঙালীর সাহিত্য,11,বাঙালী ও বাংলাদেশ,29,বি সি এস-ই স্বপ্ন,9,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি,10,বিশ্ব যোগাযোগ,2,ব্যাংকিং পেশা IS PASSION,3,CV নিয়ে অল্প স্বল্প,2,Viva সমাচার,4,
ltr
item
ইচ্ছে: [বাংলা সাহিত্য জীবনী] ১৮ শতকের অন্যতম কিছু কবিদের নিয়ে - পর্ব ১
[বাংলা সাহিত্য জীবনী] ১৮ শতকের অন্যতম কিছু কবিদের নিয়ে - পর্ব ১
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (৭ মে , ১৮৬১ — ৭ আগস্ট, ১৯৪১) ১৯০১ সালে বোলপুরের শান্তি নিকেতন ‘ব্রহ্মচর্যাশ্রম’ নামক বিদ্যাপীঠ প্রতিষ্ঠা করেন যা ১৯২১ সালে ‘বিশ্বভারতী’ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়। ১৯১৩ সালের নবেম্বর মাসে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। একই বছর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় তাকে ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান করে।
https://4.bp.blogspot.com/-iETRVPBomYc/WfQTI6ShjyI/AAAAAAAAAbQ/nbmcY2bwz64osOhHD9X9MzcauiyEgMwqACPcBGAYYCw/s640/sahitto.jpg
https://4.bp.blogspot.com/-iETRVPBomYc/WfQTI6ShjyI/AAAAAAAAAbQ/nbmcY2bwz64osOhHD9X9MzcauiyEgMwqACPcBGAYYCw/s72-c/sahitto.jpg
ইচ্ছে
https://blog.aamaricche.com/2018/05/bangla-poet-brief-bibliography.html
https://blog.aamaricche.com/
https://blog.aamaricche.com/
https://blog.aamaricche.com/2018/05/bangla-poet-brief-bibliography.html
true
4366569560520032408
UTF-8
সবগুলি লেখা দেখুন কোনো লেখা খুঁজে পাওয়া যায় নি ! সব দেখতে আরো পড়ুন মন্তব্য মন্তব্য বাতিল করুন মুছুন দ্বারা হোম বাকি অংশটুকু পোস্ট সব দেখতে আপনার জন্য আরো লেখা সহজেই খুঁজুন ইচ্ছে আর্কাইভ খুঁজুন সবগুলি লেখা দুঃখিত ! আপনার ইচ্ছেটা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কিছুক্ষন পর আবার চেষ্টা করুন। অথবা ইচ্ছে তে যান রবিবার সোমবার মঙ্গলবার বুধবার বৃহস্পতিবার শুক্রবার শনিবার রবিবার সোমবার মঙ্গলবার বুধবার বৃহস্পতিবার শুক্রবার শনিবার জানুয়ারি ফেব্রুয়ারী মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টেম্বর অক্টোবর নভেম্বর ডিসেম্বর জানুয়ারি ফেব্রুয়ারী মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টেম্বর অক্টোবর নভেম্বর ডিসেম্বর এই মাত্র ১ মিনিট আগে $$1$$ মিনিট আগে ১ ঘন্টা আগে $$1$$ ঘন্টা আগে গতকাল $$1$$ দিন আগে $$1$$ সপ্তাহ আগে ৫ সপ্তাহ এর বেশি আগে ফোলোয়ার ফোলো অবশিষ্টাংশ প্রিমিয়াম সম্পূর্ণ পোস্ট দেখতে Facebook এ শেয়ার করে Like করুন সবগুলি কোড কপি করতে সবগুলি কোড সিলেক্ট করতে সবগুলি কোড কপি হয়েছে আপনার ক্লিপ বোর্ডে Can not copy the codes / texts, please press [CTRL]+[C] (or CMD+C with Mac) to copy